করোনায় স্পেনে একরাতে ৫৩ জনের মৃত্যু, জরুরি অবস্থা জারি

করোনাভাইরাসে স্পেনে একরাতে নতুন করে ৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে কোভিড-১৯ রোগে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২০ জনে। এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ২০৯। এ অবস্থায় জরুরি অবস্থার তিন ধাপের প্রথমটি স্টেট অব এলার্ট জারি করেছে দেশটির সরকার।

স্পেনের টেলিভিশনের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া ভাইরাসটিতে আশঙ্কাজনক হারে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় জরুরি অবস্থার তিন ধাপের প্রথমটি অর্থাৎ ‘জরুরি রাষ্ট্রীয় সতর্কতা’ (স্টেট অব এলার্ট) জারি করেছে দেশটির সরকার। স্টেট অব এলার্ট জারি থাকবে ১৫ দিন।

স্প্যানিশ গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে রাজধানী মাদ্রিদে সব ধরনের রেস্তোরাঁ, পানশালা ও দোকান বন্ধ করে দেয়া হতে পারে। শুধু সুপারমার্কেট ও ওষুধের দোকানগুলোই খোলা থাকবে। আর এটা শুরু হতে পারে আগামীকাল থেকেই।

শুধু সুপারমাকের্ট এবং ওষুধের দোকানগুলোই খোলা থাকবে। টিভিই নামের একটি গণমাধ্যম বলছে, এটা শুরু হতে পারে আগামীকাল। তবে আঞ্চলিক কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে এ নিয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারেনি। বিশ্বের মধ্যে পঞ্চম সর্বোচ্চ করোনাভাইরাস আক্রান্তের ঘটনা ঘটেছে। ইউরোপে ইতালির পর দেশটির অবস্থান দ্বিতীয়। দেশটিতে করোনাভাইরাসের বিস্তার শুরু হয়েছিল মাদ্রিদ এবং বাস্ক কাউন্টি থেকে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *