মোরাতা রোনালদোর অভাব বুঝতে দিলেন না

৭৫ বছর বয়সী দিনামো কিয়েভের কোচ মিরসেয়া লুসেস্কুর অধীনে দুই যুগ আগে ব্রেসিয়ার জার্সি গায়ে অভিষেক হয়েছিল আন্দ্রেয়া পিরলোর। দুই যুগ পর পিরলোর আরেকটা অভিষেকেও জড়িয়ে থাকল লুসেস্কুর নাম। ইতালির বিশ্বকাপজয়ী এই মিডফিল্ডার এখন লুসেস্কুর মতো ম্যানেজারের ভূমিকায়, যার অধীনে এখন খেলেন রোনালদো-দিবালা-মোরাতারা। জুভেন্টাসের কোচ হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজের প্রথম ম্যাচেই লুসেস্কুর মুখোমুখি হলেন পিরলো।

জুভেন্টাসের শুরুটা হয়েছে জয় দিয়েই।

আদর্শ ‘নাম্বার নাইন’ যাকে বলে আর কি। এডিন জেকো, দুভান জাপাতা, লুইস সুয়ারেজ, দিয়েগো কস্তা, মইসে কিন—এমনই বেশ কয়েকজন স্ট্রাইকারের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছিল জুভেন্টাসের নাম। পিরলো দায়িত্ব নিয়েই নিজের সাবেক সতীর্থ আলভারো মোরাতার দিকে হাত বাড়ান, যার সঙ্গে খেলেছিলেন ২০১৫ চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল। মোরাতাকে কেনার সিদ্ধান্তটা যে ভুল ছিল না, টানা দুই ম্যাচ সেটা বেশ ভালোভাবেই বুঝে গেল জুভেন্টাস। এর আগে লিগ ম্যাচে ক্রোতোনের বিপক্ষে গোল করে দলকে ড্র এনে দেওয়া মোরাতা গত রাতে জোড়া গোল করেছেন। ওই দুই গোলেই নির্ধারিত হয়েছে ‘গুরু-শিষ্য’ লড়াইয়ের ভাগ্য। ২-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে জুভেন্টাস। দিনামো কিয়েভ শেষ দিকে হাজার চেষ্টা করেও নিজের মাঠে একটা গোল করতে পারেনি।

জুভেন্টাসের মূল একাদশে ছিলেন না দিবালাও। ৩-৫-২ ছকে মোরাতার সঙ্গে জুটি বেঁধেছিলেন সুইডিশ তারকা দেয়ান কুলুসেভস্কি, পেছনে ওয়েলশ তারকা অ্যারন র‍্যামসে। দুই উইংব্যাক ফেদেরিকো কিয়েসা ও হুয়ান কুয়াদ্রাদোর মাঝে দুই মিডফিল্ডার আদ্রিয়াঁ রাবিও ও রদ্রিগো বেনতাঙ্কুর। পেছনে গোলরক্ষক ভয়চেখ সেজনির ওপরে তিন ডিফেন্ডার কিয়েল্লিনি, দানিলো ও বোনুচ্চি।

জুভেন্টাস যে গোটা ম্যাচে খুব ভালো খেলেছে, বলা যাবে না। তবে যে সুযোগই পেয়েছে, কাজে লাগিয়েছে। গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর পিরলো যখনই ভাবছিলেন, আক্রমণভাগে বাড়তি ধার আনার জন্য দিবালাকে মাঠে নামাবেন, ঠিক তখনই ত্রাণকর্তা হয়ে আবির্ভূত হলেন মোরাতা। ৪৭ মিনিটে কুলুসেভস্কি-র‍্যামসের আক্রমণের শেষ স্পর্শটা আসে এই স্প্যানিশ তারকার পা থেকেই। গোল খেয়ে গা ঝাড়া দিয়ে উঠেছিল দিনামো। বাকি ম্যাচে গোলের জন্য একের পর এক চেষ্টা চালিয়ে গেলেন মিডফিল্ডার মাইকোলা শাপারেঙ্কো ও গেরসন রদ্রিগেস। ৮৪ মিনিটে অনেকটা স্রোতের বিপরীতেই দ্বিতীয় গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন মোরাতা। ডান প্রান্ত থেকে আসা কুয়াদ্রাদোর মাপা ক্রসে আদর্শ স্ট্রাইকারের মতো মাথা ছুঁইয়ে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন রিয়াল মাদ্রিদ, চেলসি ও আতলেতিকোর সাবেক এই স্ট্রাইকার।

ওদিকে অন্যান্য ম্যাচে রাশিয়ার ক্লাব জেনিতকে ২-১ গোলে হারিয়েছে বেলজিয়ামের ক্লাব ব্রুগা। নাইজেরিয়ার স্ট্রাইকার ইমানুয়েল দেনিসের গোলে ব্রুগা এগিয়ে যাওয়ার পর জেনিত সমতায় ফেরে আমেরিকান গোলরক্ষক ইথান হরভাথের আত্মঘাতী গোলে। একদম শেষ মুহূর্তে গোল করে দলকে জয় এনে দেন বেলজিয়ান স্ট্রাইকার চার্লস দে কেতেলেরে। গ্রুপ ‘ই’ এর ম্যাচে চেলসি গোলশূন্য ড্র করেছেন সেভিয়ার সঙ্গে। ফ্রান্সের ক্লাব রেনেঁ ১-১ গোলে ড্র করেছে রাশিয়ান ক্লাব ক্রাসনোদারের সঙ্গে। ফরাসি স্ট্রাইকার সেহরু গিরাসির গোলে রেনেঁ এগিয়ে যাওয়ার পর ম্যাচে সমতা আসে ক্রাসনোদারের লেফটব্যাক ক্রিস্তিয়ান রামিরেসের গোলে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *